অন্য ভাষায় :
শুক্রবার, ০২:১৫ পূর্বাহ্ন, ০২ জুন ২০২৩, ১৯শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
মানব সেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সেবা প্রদানকারী সংবাদ তথ্য প্রতিষ্ঠান।

“বলে নয় করে দেখাব” স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে ঈদ সামগ্রী বিতরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২ মে, ২০২২
  • ৭৬ বার পঠিত

স্বেচ্ছায় জনহিতকর কাজে জড়িত কাজকে আমরা সামাজিক ভাবে স্বেচ্ছা সেবী কাজ বলে থাকি৷ আর সাংগঠনিকভাবে পরিচালিত এরকম কর্মকান্ডকে আমরা বলি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷

নবীজী মুহাম্মদ (স.) কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত হিলফুল ফুজুল সেই ১৪০০ বছর আগেই হতদরিদ্র মানুষকে বিভিন্ন ভাবে সহায়তা করে মানবিকতার অনন্য দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন৷ কালের বিবর্তনে সময়ের প্রয়োজনে অসংখ্য সুহৃদ মানবসন্তান বৃহৎ অথবা ক্ষুদ্র পরিসরে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন প্রতিষ্ঠা করে গেছেন৷ আমরা অক্সফাম ইন্টারন্যাশনাল, লায়ন্স ক্লাব ইন্টান্যাশনাল অথবা আমাদের দেশে পরিচালিত বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের মত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের কথা হরহামেশাই পত্রিকায় পেয়ে থাকি৷ আজ আমরা এরকম একটি ভলান্টিয়ার অর্গানাইজেশনের কথাই বলব যেটি ‘বলে নয় করে দেখাব’ নামে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে যাচ্ছে।

 

বলে নয় করে দেখাব ২০১৬ সাল হতে তাদের জনহিতকর কাজ করে আসছে৷ কার্যক্রম শুরুর প্রথম পর্যায়ে ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহাতে দুঃস্থ- অসহায় এবং সমাজের বঞ্চিত মানুষদের ইদ উদযাপনে প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণ করে ইদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিত৷ তখন ৪০-৫০ জন মানুষকে ইদ সামগ্রী বিতরণ করা হলেও এখন সংখ্যাটি ২০০ জনে দাড়িয়েছে৷ ইদ ছাড়াও সংগঠনটি বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে৷ বিশেষ করে করোনা মহামারিতে তারা  নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস নিয়ে নিম্ন আয়ের কর্মজীবী মানুষদের পাশে দাঁড়িয়েছে৷ এছাড়াও সংগঠনটি বিভিন্ন সময়ে রক্তদান ও যৌতুক বিরোধী প্রচারণা চালিয়ে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করেছে৷

সংগঠনটি প্রতিষ্ঠায় অগ্রগামী ভূমিকা পালন করেন তৎকালীন বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া শিক্ষার্থী এস এম মেহেদি হাসান মুরাদ ৷ তার একান্ত প্রচেষ্টায় ও কঠোর পরিশ্রম এবং তার বন্ধুমহল ও কর্মপ্রিয় অনুজদের সহযোগিতায় সংগঠনটি আজ বরিশাল জেলার গৌরনদি থানায় একটি সুপরিচিত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷

 

শুরুর দিকে সংগঠনটির তহবিলের উৎস মূলত ছিল স্বেচ্ছাসেবীদের নিজস্ব অর্থায়ন৷ তাছাড়া স্বেচ্ছাসেবীদের পরিচিত অনেক প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী এবং চাকুরীজীবীরা সংগঠনে বিভিন্ন সময়ে অর্থ প্রদান করছেন৷ এদের মধ্যে একজন সুহৃদ হলেন অস্ট্রেলিয়ান প্রবাসী জনাব জাকির হোসেন৷ তিনি এ্যাকশন ফর হিউম্যান রাইটস এর পক্ষ হতে সহযোগিতার হাত বাড়ান৷ জাকির হোসেন অস্ট্রেলিয়ার গোল্ড কোস্ট কুইন্সল্যান্ড সিটিতে বসবাসরত রয়েছেন৷ তিনি বাংলাদেশে এবং প্রবাসে বিভিন্ন সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছেন৷

আর শুরু থেকেই সংগঠনটির সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন হংকং প্রবাসী দিদার সরদার৷ তিনি একাধারে সম্পাদক ও প্রকাশক – সময়ের কণ্ঠধ্বনি; ক্লাব ডাইরেক্টর- ইন্টারন্যাশনাল লায়ন্স ক্লাব,৩১৫ বি -১, বাংলাদেশ; প্রতিষ্ঠাতা -আহবায়ক আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠক(UAHR); পরিচালক ও উপদেষ্টা জাতীয় কবি পরিষদ (জাকপ)। এছাড়াও তিনি আরো কিছু সুপরিচিত সংগঠনের সংগঠক এবং কার্যকরী সদস্য৷ তাদের সহযোগিতায় ৭ম বারের মত “বলে নয় করে দেখাব” তাদের ঈদ সামগ্রী বিতরণের কার্যক্রম সম্পন্ন করতে যাচ্ছে৷

বলা হয়ে থাকে কীর্তিমানের মৃত্যু নাই৷ এই কর্পোরেট যুগে এসেও, চরম মাত্রায় ব্যস্ততা এবং প্রতিযোগিতার মাঝেও মানুষ মানুষকে নিয়ে ভাবছে; নিম্নস্তরের মানুষদের সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করছে৷ তাইতো পৃথিবীটা আজও বাসযোগ্য৷ সুকান্ত ভট্টাচার্য্য হয়ত বাসযোগ্য পৃথিবী বলতে ভেদাভেদ শুন্য পৃথিবীর কথাই বলে গিয়েছেন৷ সমাজের বিত্তবানদের প্রতক্ষ  সহযোগিতায় এবং যুবকদের উদ্যমে স্বেচ্ছাসেবী কার্যক্রম এভাবেই অগ্রসরমান থাকুক৷ গড়ে উঠুক বাসযোগ্য পৃথিবী; এগিয়ে যাক বলে নয় করে দেখাবর মত স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন৷

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2021 SomoyerKonthodhoni
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com