অন্য ভাষায় :
সোমবার, ০৪:২২ অপরাহ্ন, ১৫ জুলাই ২০২৪, ৩১শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
মানব সেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সেবা প্রদানকারী সংবাদ তথ্য প্রতিষ্ঠান।

বরিশালের হিজলা বিএনপির কমিটি গঠনে নিজস্ব বলয় তৈরীতে ব্যস্ত স্থানীয়-জাতীয় নেতৃবৃন্দ!

সময়ের কণ্ঠধ্বনি ডেস্ক:
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২২
  • ৬২ বার পঠিত

বরিশালের হিজলা বিএনপির কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে জেলা বিএনপি ও জাতীয় নেতৃবৃন্দের মধ্যে নিজস্ব লোককে পদায়ন করতে ব্যস্ত অধিকাংশ নেতা। হিজলা বিএনপির একাধিক নেতাকর্মী এ প্রতিবেদকের সাথে আলাপকালে জানান হিজলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ও আহবায়ক দেওয়ান মোঃ শহিদুল্লাহ উত্তর জেলা বিএনপির আহবায়ক হওয়ার পরে তিনি তার নিজস্ব বলয় তৈরী করতে উপজেলা বিএনপির সাবেক নেতৃবৃন্দকে বাদ দিয়ে বিভিন্ন ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকে জেলা বিএনপিতে পদায়নসহ উপজেলা বিএনপির কমিটিতে তাদের পদায়ন করতে চান।

এছাড়াও তার ছেলে সাবেক ছাত্রদল নেতা সাইফুল্লাহ দেওয়ানকে হিজলা উপজেলা বিএনপি কমিটির গুরুত্বপুর্ণ পদে বসাতে উপজেলা কেন্দ্রিক তার রাজনৈতিক সহযোদ্ধাদের বঞ্চিত করতে নানা কুটকৌশলের আশ্রয় নিচ্ছে। উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও আহবায়ক আলহাজ্ব ও আহবায়ক আঃ গাফফার তালুকদার নেতাকর্মীর কাছে সর্বাদিক প্রিয় এবং সাংগঠনিক যোগ্যতা সম্পন্ন হওয়া স্বত্বেও তাকে বাদ দিয়ে উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারন সম্পাদক ও দীর্ঘ দিন রাজনীতি থেকে ঘর মেরে থাকা মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী অপুকে আহবায়ক করার জন্য তর নিজস্ব বলয়ের নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দিয়েছেন যোগাযোগ রক্ষা করার জন্য । এতে করে দল গতিশীল ও শক্তিশালী হওয়ার পরিবর্তে নেতাকর্মীরা দ্বিধা বিভক্ত হয়ে দল দুর্বল হওয়ার পাশাপাশি সাংগঠনিক বিপর্যয় দেখা দেয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

হিজলা বিএনপিতে প্রকাশ্য দুটি গ্রুপের পাশাপাশি ক্ষুদ্রাঙ্গিকে কয়েকটি উপগ্রুপ রয়েছে। প্রধান দুটি গ্রুপের একটির নেতৃত্বে আঃ গাফফার তালুকদার অপরটি নেতৃত্বে খোদ জেলা বিএনপির আহবায়ক দেওয়ান মোঃ শহিদুল্লাহ। হিজলা উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি দেওয়ান মনির হোসেন উপগ্রুপের নেতৃত্ব দিলেও এর পেছনে রয়েছে সাবেক ছাত্রদল সভাপতি বর্তমান স্বেচ্ছাসেবক দল কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারন সম্পাদক রাজিব আহসান অন্যদিকে গাফফার তালুকদারের পিছনে রয়েছেন বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি হিজলা মেহেন্দিগঞ্জ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মেজবা উদ্দিন ফরহাদ, এছাড়াও মুলাদী বাবুগঞ্জ আসনের সংসদ সদস্য প্রার্থী বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সুপ্রিম কোর্ট বার আইনজীবী জয়নুল আবেদীন, সাবেক সংসদ সদস্য প্রার্থী নুরুর রহমান জাহাঙ্গীর এর প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ ইন্দন গ্রুপিংএর পেছনে কাজ করছে। কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বরিশাল বিভাগ ও সাবেক সংসদ সদস্য এ্যাড. বিলকিস জাহান শিরিন আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হিজলা মেহেন্দিগঞ্জ আসন থেকে মনোনয়ন পেতে ধরা ছোয়ার বাহিরে কলকাঠি নাড়ছে।

বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির আহবায়ক ও হিজলা বিএনপির সাবেক সভাপতি দেওয়ান মোঃ শহিদুল্লাহ হিজলা মেহেন্দিগঞ্জ আসন থেকে জাতীয় নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে নিজস্ব বলয় তৈরী করতে বিগত ১৪/১৫ বছর যাবৎ যারা রাজনৈতিক মাঠ থেকে দূরে সরে আন্দোলন সংগ্রামে বিগত দিনে ভূমিকা না রেখে দল থেকে দূরে সরে গিয়েছিল দেওয়ান মোঃ শহিদুল্লাহ আহবায়ক হওয়ার পর থেকে এদের কমিটিতে পদায়ন করতে রাজনৈতিক মাঠে নামিয়েছেন। অপর দিকে বরিশাল উত্তর জেলা সহ হিজলা মেহেন্দিগঞ্জ মুলাদী সক্রিয় কর্মী এবং নেতাদের সাংগঠনিক কার্যক্রমে অংশগ্রহনে বেগাত সৃষ্টিসহ নানা কৌশলে বিভিন্ন কর্মসূচী থেকে তাদের দূরে ঠেলে দিচ্ছেন।

গৌরনদী আবুল হোসেন মিয়া, মনিরুজ্জামান মনির, আগৈলঝাড়ার আফজাল হোসেন, আবুল হোসেন লাল্টু, শাহ মোঃ বখতিয়ার, মুলাদীর সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা বিএনপির সভাপতি, জেলা বিএনপির আঃ সত্তার খান, তরিকুল ইসলাম দিপু, আঃ রব খান, হিজলা বিএনপির আঃ গাফফার তালুকদার, এ্যাড. নুরুল আলম রাজু, নায়েব নাজমুল হক, জহিরুল হক নবু, এ্যাড. দেওয়ান মনির হোসেন, আফসার উদ্দিন হাওলাদার, আঃ বারেক মাঝি, এ্যাড. মেহেদি হাসান নিপু, আঃ মন্নান খান, জাকির হোসেন সেলিম, খলিলুর রহমান, সালমা খান, গিয়াস উদ্দিন দেওয়ান, আলতাফ হোসেন খোকন, মেহেন্দিগঞ্জ উপজেলার সৈয়দ রফিকুল ইসলাম লাবু, গিয়াস উদ্দিন দীপেন, জিয়া উদ্দিন সুজন, শাহাবুদ্দিন হিমু, আসাদুজ্জামান মুক্তা সহ প্রায় ২ ডজন নেতাকে বাদ দিয়ে যারা বিগত দিনে উত্তর জেলা সহ তাদের নিজ নিজ উপজেলায় রাজনৈতিক ভাবে সক্রিয় থাকলেও তাদেরকে বঞ্চিত করে নিজস্ব বল তৈরীতে মহাব্যস্ত জেলা বিএনপির আহবায়ক দেওয়ান শহিদুল্লাহ। অপর দিকে দীর্ঘ দিন জেলা বিএনপির রাজনীতি থেকে দূরে থাকা বরিশাল উত্তর জেলা বিএনপির বর্তমান সদস্য সচিব মিজানুর রহমান মুকুলের সাথে অনেক নেতাকর্মীর পরিচয় না থাকায় সে যাদের সাথে পরিচয় আছে যারা যোগাযোগ করছেন তাদেরকে পদায়নে ব্যস্ত।

এভাবে সংগঠনকে দুর্বল করে নতুন আহবায়ক কমিটি বিভিন্ন উপজেলা ও পৌর শাখায় সংগঠনকে বিভিন্ন গ্রুপ ও উপ গ্রুপে বিভক্ত করার পাশাপাশি সংগঠনকে দুর্বল করলে আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামে উত্তর জেলার আওতাধীন বিভিন্ন ইউনিট সাংগঠনিক ভাবে দুর্বল হয়ে যাচ্ছে বলে মনে করেন অধিকাংশ বিএনপি নেতা। কমিটি গঠনের পূর্বে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ বরিশাল বিভাগীয় নেতৃবৃন্দকে কমিটি গঠন বিষয়ে দৃষ্টি রাখার আহবান জানিয়েছেন উত্তর জেলার বিএনপির বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2021 SomoyerKonthodhoni
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com