অন্য ভাষায় :
সোমবার, ০৬:২৭ অপরাহ্ন, ২০ মে ২০২৪, ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
মানব সেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সেবা প্রদানকারী সংবাদ তথ্য প্রতিষ্ঠান।

জুমার আগের চার রাকাত সুন্নত কি হাদিসে নেই?

সময়ের কণ্ঠধ্বনি ডেস্ক:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৯ জুলাই, ২০২২
  • ৭৬ বার পঠিত

মুসলিম উম্মাহর অধিকাংশ ইমামদের মতে জুমার পূর্বের সুন্নত হলো সুন্নতে মুআক্কাদা৷ ইমাম ইবনে রজব হাম্ভলি (রা.) ‘ফাতহুল বারী’তে এ মাসআলা নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন৷

তিনি লিখেন, ইমামরা এ বিষয়ে মতানৈক্য করেছেন যে, জুমার পূর্ববর্তি সুন্নত জোহরের পূর্বের চার রাকাতের মত মুয়াক্কাদা, নাকি আছরের আগের সুন্নাতের মতো মুস্তাহাব? অধিকাংশ ইমামদের মত হলো, জুমার পূর্বের সুন্নত হলো  সুন্নতে মুয়াক্কাদা।

ইমাম আওযায়ী, সুফিয়ান ছাওরি, ইমাম আবু হানিফা এবং তার ছাত্রদের কথা। ইমাম আহমদ (রা.) এর মতও হলো এমন। কাজী আবু ইয়ালা ‘শারহুল মুহাযযাব’ এ এবং ইবনূ আক্বিল বলেছেন, জুমার পূর্বের সুন্নত সুন্নতে মুয়াক্কাদা হওয়ার মত হলো ইমাম শাফেয়ী (র.) এর৷ (ফাতহুল বারী,৫/৫৪৪.দারু ইবনিল জাওযী)

উম্মাহর স্বীকৃত এতজন ইমাম জুমার পূর্বের সুন্নতকে সুন্নতে মুয়াক্কাদা বলে গেছেন! ইমামরা নসের (মূল টেক্সট) আলোকেই সুন্নতে মুয়াক্কাদা বলেছেন৷ এখানে হাদিস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করার সুযোগ কম, তবুও শুধু কয়েকটি হাদিস তুলে ধরছি৷

আবু আব্দুর রহমান সূলামী থেকে বর্ণিত: তিনি বলেন: كان عبد الله يأمرنا أن نصلي قبل الجمعة أربعا وبعدها أربعا

অর্থাৎ আব্দুল্লাহ বিন মাসউদ (রা.) আমাদেরকে জুমার পূর্বে চার রাকাত এবং পরে চার রাকাত পড়ার নির্দেশ দিয়েছেন। (মুসান্নাফে আব্দুর রাজ্জাক: ৫৫২৫ ই’লাউস সুনান: ১৭৬২৷)

হাদিসটি সম্পর্কে হাফিজ ইবনে হাজার আসকালানী বলেন, رجاله ثقات

অর্থাৎ এ হাদিসের বর্ণনাকারীগণ হলেন বিশ্বস্ত এবং গ্রহণযোগ্য। (আদ দিরায়াহ: ১/১১৩)

হজরত আলী (রা.) থেকে বর্ণিত, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম  জুমার পূর্বে চার রাকাত এবং পরে চার রাকাত সুন্নত পড়তেন। (আল মু’যামুল আওসাত: ১৬১৭, ই’লাউস সুনান: ১৭৬২)

এ হাদিসের একজন বর্ণনাকারী হলেন মুহাম্মাদ বিন আব্দুর রহমান আস সাহমী। তার সম্পর্কে ইমাম ইবনে আদী বলেন: আমার নিকট তার বর্ণনায় কোন অসুবিধা নেই।

এছাড়া ইমাম ইবনে হিব্বান (রা.) গ্রহণযোগ্য বর্ণনাকারীদের জীবনী সংক্রান্ত একটি গ্রন্থ রচনা করেছেন, যা ‘কিতাবুস ছিক্বাত’ নামে প্রসিদ্ধ। সেখানেও তিনি আব্দুর রহমান আস সাহমীর জীবনি উল্লেখ করেছেন। (লিসানুল মিযান: ৫/২৪৫)।

বাকী বর্ণনাকারী সকলেই হলেন “ছিক্বাহ”৷ এজন্যই মোল্লা আলী ক্বারী রাহি. বলেন, হাদিসটি জায়্যিদ তথা হাসান সূত্রে বর্ণিত হয়েছে, যেমনটি ইমাম যাইনুদ্দীন  ইরাকি (রা.) এর বক্তব্য যে, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জুমার পূর্বে চার রাকাত পড়েছেন৷ (মিরকাত: ২/১১২)

ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, كان رسول الله صلى الله عليه وسلم يركع قبل الجمعة أربعاً وبعدها أربعاً لا يفصل بينهن

অর্থাৎ রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম জুমার পূর্বে এবং পরে চার রাকাত সুন্নাত পড়েছেন। (আল মু’যামুল কাবীর: ১২৬৭৪৷ মাযমাউয যাওয়ায়িদ,৩১৯০)

ইবরাহীম নাখায়ী থেকে বর্ণিত: كانوا يصلون قبلها أربع

অর্থাৎ সাহাবায়ে কেরাম জুমার পূর্বে চার রাকাত পড়তেন। (মুসান্নাফে ইবনে আবি শায়বা: ৫৪০৫)

এজন্য জুমার পূর্বের সুন্নাত একাধিক হাদিস দ্বারা প্রমাণিত৷ এটা নিয়ে সংশয়ের কোন সুযোগ নেই৷ আল্লাহ আমাদের সঠিক পথে পরিচালিত করুন৷

লেখক: গবেষক আলেম ও জনপ্রিয় বক্তা

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2021 SomoyerKonthodhoni
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com