অন্য ভাষায় :
সোমবার, ০৬:০০ অপরাহ্ন, ২০ মে ২০২৪, ৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
মানব সেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সেবা প্রদানকারী সংবাদ তথ্য প্রতিষ্ঠান।

যুক্তরাজ্যে কর্মক্ষেত্রে ইসলামবিদ্বেষের শিকার মুসলিমরা : সমীক্ষা

সময়ের কণ্ঠধ্বনি ডেস্ক ‍॥
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৮ জুন, ২০২২
  • ৮১ বার পঠিত

যুক্তরাজ্যে কর্মক্ষেত্রে ইসলামবিদ্বেষের শিকার হচ্ছেন মুসলিমরা। দশ জনের মধ্যে সাতজনই এমন অভিজ্ঞতার শিকার হয়েছেন। মঙ্গলবার প্রকাশিত এক সমীক্ষায় এমনটাই দেখা গেছে।

এতে বলা হয়েছে, বর্তমানে যুক্তরাজ্যে বসবাস করা প্রায় ৬৯ শতাংশ মুসলিমই কর্মক্ষেত্রে বিভিন্ন পর্যায়ে ইসলামবিদ্বেষী আচরণের মুখোমুখি হয়েছেন।

এর মধ্যে গ্রাহক, ক্লায়েন্ট এবং অন্যান্য মানুষের সাথে যোগাযোগের সময় ৪৪ শতাংশ, কাজের সাথে সম্পর্কিত সামাজিক অনুষ্ঠানের সময় ৪২ শতাংশ এবং প্রচার কাজের সময় ৪০ শতাংশ ইসলামবিদ্বেষের শিকার হয়েছেন।

ইউরোপে ইসলামেবিদ্বেষ এবং মুসলিমদের প্রতি বৈষম্য পর্যবেক্ষণকারী সংস্থা হাইফেনের নির্দেশে সমীক্ষাটি পরিচালনা করেছে পোলিং কোম্পানি সাভান্তা কমরেস।

মোট এক হাজার ৫০৩ জন ব্রিটিশ মুসলমানের ওপর ২২ এপ্রিল থেকে ১০ মে পর্যন্ত সমীক্ষা চালানো হয়েছে। বয়স, লিঙ্গ, জাতি এবং অঞ্চল অনুসারে যুক্তরাজ্যের মুসলমানদের প্রতিনিধিদের অভিজ্ঞতা জানতে চাওয়া হয়েছে।

সমীক্ষায় উঠে এসেছে, সবচেয়ে বেশি ইসলামবিদ্বেষের শিকার হচ্ছেন কৃষ্ণাঙ্গ মুসলিমরা। যেখানে সমস্ত মুসলমানদের ৩৭ শতাংশ নিয়োগ পর্যায়ে বৈষম্যের শিকার হচ্ছেন, সেখানে কৃষ্ণাঙ্গ মুসলিমদের সংখ্যা ৫৮ শতাংশ।

যুক্তরাজ্যের মুসলিম সম্প্রদায়ও জীবনযাত্রার উচ্চমূল্যের সঙ্কটে আছে। ৫৪ শতাংশ মুসলিম বলেছেন, পরিবারের মৌলিক পানি, গ্যাস, বিদ্যুতের বিল, খাদ্য এবং জ্বালানী খরচ বহন করা এখন একটি বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অথচ পাঁচ বছর আগেও এমনটা ছিল না।

আশার বাণী

তবে সমীক্ষায় কেউ কেউ আশার বাণীও শুনিয়েছেন। বলেছেন, আগের তুলনায় এখন পরিস্থিতি অনকেটাই সহনীয় পর্যায়ে আছে। ৫০ শতাংশ মুসলিম বলেছেন, তাদের জীবনযাত্রার মানের অনেক উন্নতি হয়েছে। ৬৮ শতাংশ মনে করছেন, সমাজে মুসলিমদের গ্রহণযোগ্যতা বেড়েছে। আর ৫৩ শতাংশ বলছেন, যুক্তরাজ্যে এখন মুসলিমরা অনেক ভালো অবস্থানে আছেন।

কেউ কেউ এই কথাও বলছেন, অনেক মুসলিমরা এখানে সফলতা অর্জন করেছেন। তাদের রোল মডেলও মনে করছেন অনেকে।

সবশেষে প্রতিবেদনে একটি ব্যাপারে জোর দেয়া হয়েছে যে, সরকারকে সমাজে সমতা প্রতিষ্ঠিত করতে হলে কৃষ্ণাঙ্গ, এশিয়ান এবং সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের প্রতি দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে হবে।

সূত্র : মিডল ইস্ট মনিটর

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2021 SomoyerKonthodhoni
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com