অন্য ভাষায় :
মঙ্গলবার, ০৪:৫৭ অপরাহ্ন, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
মানব সেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সেবা প্রদানকারী সংবাদ তথ্য প্রতিষ্ঠান।

এশিয়া কাপ ফাইনালের ‘ড্রেস রিহার্সেল’ শুক্রবার

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২২
  • ৭২ বার পঠিত

সুপার ফোরের লড়াই শেষ হওয়ার আগেই এশিয়া কাপের ১৫তম আসরের টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের ফাইনাল নিশ্চিত করেছে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। আগামী ১১ সেপ্টেম্বর ফাইনালে লড়বে এই দু’দল। তবে ফাইনালের আগে সুপার ফোরের শেষ ম্যাচে আগামীকাল মুখোমুখি হচ্ছে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। এ যেন ফাইনালের ‘ড্রেস রিহার্সেল’।

দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তানের ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায়।

গ্রুপ রার্নাস-আপ হয়ে সুপার ফোরে উঠে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। সুপার ফোরে নিজেদের প্রথম দুই ম্যাচ জিতেই ফাইনাল নিশ্চিত করে দল দু’টি। আফগানিস্তানকে ৪ ও ভারতকে ৬ উইকেটে হারায় শ্রীলঙ্কা। ভারতকে ৫ এবং আফগানদের ১ উইকেটে হারায় পাকিস্তান।

গতরাতে শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে আফগানদের ১ উইকেটে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করে পাকিস্তান। পাকিস্তানের জয়ে ফাইনাল নিশ্চিত হয় শ্রীলঙ্কারও। কারণ সুপার ফোরে দুই ম্যাচ জিতে ৪ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ফেলে শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। দুই ম্যাচ হেরে কোনো পয়েন্ট নেই ভারত ও আফগানিস্তানের। ফলে সুপার ফোরের শেষ রাউন্ডের আগেই এশিয়া কাপ থেকে বিদায় নেয় তারা।

ফাইনালের আগে একে অপরকে পরখ করে নেয়ার ভালো সুযোগ পেল শ্রীলঙ্কা ও পাকিস্তান। ম্যাচটির গুরুত্ব কম থাকলেও, জয়ের দিকেই চোখ দু’দলের।

শ্রীলঙ্কার ওপেনার কুশল মেন্ডিস বলেন, ‘এবারের আসরে প্রথম ম্যাচ হারের পর টানা তিন খেলায় জিতেছি আমরা। জয়ের ধারাবাহিকতাটা অব্যাহত রাখতে চাই আমরা। ফাইনালের আগে এ ম্যাচটি আমাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ। ফাইনালের আগে নিজেদের ভালোভাবে ঝালিয়ে নেয়ার সুযোগ থাকছে।’

পাকিস্তানের মিডল-অর্ডার ব্যাটার ফখর জামান বলেন, ‘ফাইনাল নিশ্চিত হলেও, এ ম্যাচটিকে আমরা গুরুত্ব সহকারেই নিচ্ছি। জয়ের ধারায় থাকতে পারলে, আত্মবিশ্বাসও ভালো থাকবে। তাই জয়ের স্বাদ নিয়েই ফাইনাল খেলতে নামতে চায় দল।’

এখন পর্যন্ত টি-টোয়েন্টিতে ২১বার মুখোমুখি হয়েছে পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। এর মধ্যে ১৩বার জিতেছে পাকিস্তান। আটবার জিতেছে শ্রীলঙ্কা।

২০১৯ সালের অক্টোবরে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে খেলেছিলো পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কা। পাকিস্তান সফরে তিন ম্যাচের ওই সিরিজটি ৩-০ ব্যবধানে জিতেছিলো লঙ্কানরা।

টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি লড়াইয়ে পাকিস্তানের জয়ের পাল্লা ভারী থাকলেও, এশিয়া কাপের মঞ্চে বেশি জয় রয়েছে শ্রীলঙ্কার। এশিয়া কাপে ১৫ বারের লড়াইয়ে ১০ বার জিতেছে লঙ্কানরা। পাঁচবার জয় আছে পাকিস্তানের।

এশিয়া কাপে সর্বশেষ ২০১৬ সালের আসরে দেখা হয়েছিলো পাকিস্তান ও শ্রীলঙ্কার। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের ওই আসরে শ্রীলঙ্কাকে ৬ উইকেটে হারিয়েছিলো পাকিস্তান।

শ্রীলঙ্কা দল : দাসুন শানাকা (অধিনায়ক), কুশল মেন্ডিস (উইকেটরক্ষক), দীনেশ চান্দিমাল, দানুশকা গুনাথিলাকা, পাথুম নিশাঙ্কা, চারিথ আসালঙ্কা, ভানুকা রাজাপাকসে, আসিন বান্দারা, ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা, ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা, মাহেশ থিকশানা, জেফ্রি ভান্দারসে, প্রভীন জয়াবিক্রমা, চামিকা করুনারত্নে, দিলশান মধুশঙ্কা, মাথেশ পাথিরানা, নুয়ান্দু ফার্নান্দো, আসিথা ফার্নান্দো, প্রমোদ মধুশান ও নুয়ান থুসারা।

পাকিস্তান দল : বাবর আজম (অধিনায়ক), শাদাব খান, আসিফ আলি, ফখর জামান, হায়দার আলি, হারিস রউফ, ইফতিখার আহমেদ, খুশদিল শাহ, মোহাম্মদ নাওয়াজ, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), হাসান আলি, নাসিম শাহ, শাহনেওয়াজ দাহানি, মোহাম্মদ হাসনাইন ও উসমান কাদির।

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2021 SomoyerKonthodhoni
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com