অন্য ভাষায় :
মঙ্গলবার, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২১শে ফাল্গুন, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
নোটিশ :
মানব সেবায় নিয়োজিত অলাভজনক সেবা প্রদানকারী সংবাদ তথ্য প্রতিষ্ঠান।

বরিশালে ‘নিখোঁজ’ ছাত্রদল নেতাকে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার

অনলাইন ডেস্কঃ
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১০ অক্টোবর, ২০২২
  • ৭৫ বার পঠিত

বরিশাল নগরী থেকে সাদা মাইক্রোবাসে তুলে নেওয়া ছাত্রদল নেতাকে উজিরপুর উপজেলার এক জঙ্গল থেকে শিকল দিয়ে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার হয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

রবিবার রাত ৮টায় উজিরপুর উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের নারায়নপুর এলাকার একটি মসজিদ সংলগ্ন জঙ্গল থেকে তাকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা ছাত্রদল নেতা ফোরকান হোসেন ইরানকে শনিবার রাত ১০টায় তুলে নেওয়ার অভিযোগ করেন তার চাচাতো ভাই। ইরান বরিশাল জেলা ছাত্রদলের ১নং সহ-সাধারণ সম্পাদক ও উজিরপুর উপজেলার ধামুরা এলাকার বাসিন্দা আলম চাঁন সরদারের ছেলে। বরিশাল নগরীর বেসরকারি ইউনিভার্সিটি অব গ্লোবাল ভিলেজ’র বিবিএ’র ছাত্র ইরান নগরীর গোড়াচাদ দাস রোডের একটি বাসার ভাড়াটিয়া হিসেবে থাকতো।

উজিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুল হাসান বলেন, ট্রিপল ৯৯৯ এর মাধ্যমে তারা জানতে পারেন উপজেলার গুঠিয়া ইউনিয়নের নারায়নপুর এলাকার একটি মসজিদ সংলগ্ন জঙ্গল থেকে স্থানীয়রা ইরানকে উদ্ধার করেছে। খবর পেয়ে তাদের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে ইরানের পরিবারকে খবর দেয়। রাত ১২টার দিকে তার মায়ের জিম্মায় দেয়া হয়েছে।

ওসি আরও জানান, এ বিষয়ে কোন অভিযোগ দিতে চাইলে কোতয়ালী মডেল থানায় অভিযোগ দিতে পরামর্শ দেয়া হয়েছে।কোতয়ালী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সগীর হোসেন বলেন, ছাত্রদল নেতা ইরানকে গত শনিবার রাত ১০টায় একটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাসে তুলে নেয়ার অভিযোগ দেয়।ঘটনার সময় তার সাথে থাকা চাচাতো ভাই রাব্বিকে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে সাজানো ঘটনার রহস্য ফাঁস হওয়ায় বিষয়টি টের পেয়ে উদ্ধারের নাটক করেছে।

পরিদর্শক আরও জানান, তাদের হেফাজতে থাকা রাব্বিকে পরিবারের জিম্মায় দেয়া হয়েছে। অভিযোগের তদন্তে থাকা কোতয়ালী মডেল থানার এসআই আরাফাত হাসান বলেন, তাদের দাবি অনুযায়ী রাত ১০টায় তাকে তুলে নেয়ার কোন ঘটনাই ঘটেনি। তাদের কাছে ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ রয়েছে।

তবে বিকাল সাড়ে ৪টার দিকে একটি ফুটেজে দেখা গেছে একটি অটো থেকে নেমে রাব্বি একদিকে ও ইরান আর দিকে চলে গেছে। এসআই আরও বলেন, ঘটনার পর রাব্বি তার পরিবারকে না জানিয়ে বরিশাল জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুলকে জানিয়েছে। তার পরামর্শে রাব্বি থানায় অভিযোগ দিয়েছে।

এ বিষয়ে বরিশাল জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুল হাসান জানান, আমাকে ইরানের ফোন দিয়ে রাব্বি বিষয়টি জানানোর পর তার পরিবার ও পুলিশকে জানাতে বলেছি। এর বেশি কিছু জানি না।প্রত্যক্ষদর্শী নারায়নপুর গ্রামের বাসিন্দা মো. মন্টু জানান, রাত ৮টার দিকে পথচারীরা বাঁচাও বাঁচাও চিৎকার শুনে টর্চের আলো ফেলে শিকল দিয়ে হাত পা বাঁধা এবং গেঞ্জি গলায় পেচানো ও শুধু জাইঙ্গা (আন্ডার গার্মেন্টস) পড়া অবস্থায় দেখতে পেয়ে উদ্ধার করেছে। উদ্ধারের পর পুলিশকে খবর দেয়া হয়। তারা এসে আত্মীয় স্বজনকে খবর দিয়ে তাদের কাছে দিয়েছে।

ইরানের বরাতে মন্টু বলেন, অজ্ঞান অবস্থায় তাকে ফেলে রাখা হয়েছে। গলায় পেচানো গেঞ্জি দিয়ে তার মুখ বাঁধা ছিলো। জ্ঞান ফিরলে নড়াচড়া করে গেঞ্জি মুখ থেকে সরে গেলে বাঁচাও বাচাও চিৎকার করেছে।তার শরীরে কোন আঘাতের চিহৃ পাওয়া যায়নি।

মন্টু আরও বলেন, এলাকাবাসী সন্ধ্যার পর দুইটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস প্রবেশ করতে দেখেছেন। তাদের ধারণাা মাইক্রোবাসে করে তাকে এনে ফেলে রাখা হয়েছে।ইরানের ব্যবহৃত ০১৭১৪-০৪৪৪৯২ নম্বর বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।

পুলিশ হেফাজতে নেওয়ার আগে সাংবাদিকের কাছে রাব্বি জানান, তার মোবাইল ফোন অচল হওয়ায় শনিবার বিকালে বরিশাল নগরীতে তিনি আসেন। ছাত্রদল নেতা ইরানকে নিয়ে মোবাইল ফোন সার্ভিসিং করে রাত ১০টার দিকে গোড়াচাদ দাস রোডের ভাড়া বাসার উদ্দেশ্যে রওনা দেন। ঈশ্বর বসু রোডের প্রবেশমুখে আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে পৌঁছালে একটি সাদা মাইক্রোবাস এসে তাদের গতিরোধ করে। তারা নিজেদের ডিবি পুলিশ পরিচয়ে গেঞ্জি পরিহিতরা ইরানকে জিজ্ঞাসা করেন আপনার নাম কি ইরান। ইরান উত্তর দেন হ্যাঁ। এরপর তাদের সাথে ডিবি কার্যালয়ে যাওয়ার জন্য মাইক্রোবাসে উঠতে বলেন। এ সময় ইরান তার ব্যবহৃত মোবাইল সেটটি রাব্বির হাতে দিয়ে মাইক্রোবাসে ওঠেন।

রাব্বি আরও বলেন, ভাইকে নেয়ার পর নগরীর বিভিন্ন স্থানে খবর দিয়ে স্বজনদের নিয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় গিয়ে কোন সন্ধান পাননি। জেলা ও মেট্রোপলিটন ডিবি অফিসে গিয়েও ইরানের সন্ধান মেলেনি। সেখানকার কর্মরতরা জানিয়েছেন তারা এ সম্পর্কে কিছুই জানেন না।

কোতয়ালী মডেল থানার ওসি আজিমুল করিম একজন এসআইকে সাথে দিয়ে দেন। তাকে নিয়ে ওই এসআই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।রাব্বি বলেন, এ ঘটনায় সকালে কোতায়লী মডেল থানায় সাধারণ ডায়েরী করতে গেলে ওসি অভিযোগ আকারে রেখে দেন।

বরিশাল জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মাহফুজুল আলম মিঠু বলেন, বিষয়টি রহস্যজনক। ঘটনাস্থলের ভিডিও ফুটেজ দেখেছি। ভিডিওতে দেখা গেছে, ইরান হেঁটে বের হয়ে মোবাইল ফোন দিয়ে চলে গেছে।ইরানের বিরুদ্ধে কোন মামলা নেই। প্রশাসনের নজরে থাকার মতো কোন কর্মকান্ড করেনি।

ছাত্রদল নেতার দাবি সামনে কমিটি হবে। সকলের দৃষ্টি ও সহানুভুতি নেয়ার জন্য সাজানো কোন ঘটনা ঘটিয়েছে।

সুত্রঃ dhaktimes24

নিউজটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর..
© All rights reserved © 2021 SomoyerKonthodhoni
Theme Dwonload From ThemesBazar.Com